জেনে নেই সহজেই ঘরে বসে ওয়ার্ম আপ করার নিয়ম!

যে কোন ব্যায়াম বা ওয়ার্কআউটের আগে একটু ওয়ার্মআপ করে নেওয়া জরুরি। এতে করে একদিকে যেমন ইনজুরির আশংকা কমে যায়, তেমনি শরীরের মাংশপেশী ও হাড়ের জয়েন্টগুলো সচল হয়ে ওঠে পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য। 

সকালে ঘুম থেকে উঠে ভরপেট পানি পান করা এবং তারপর হালকা ওয়ার্মআপ করা কে আপনি নিত্য দিনের অভ্যেসে পরিণত করতে পারেন। 

সাধারণ ওয়ার্মআপ (কোন বিশেষ ব্যায়াম নয়) এর জন্য যা যা করতে হবে তা নিচে বর্ণনা করা হয়েছে। ছবি ও নির্দেশনা অনুসরণ করে করে ফেলুন। 

সতর্কতাঃ আপনি যদি কচি ব্যাঘ্র শাবক হয়ে থাকেন, মানে যদি বেশি নড়াচড়া করার অভ্যেস না থাকে, তবে ধীরে ধীরে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করে নড়াচড়া করবেন। মনে রাখবেন, একদিনেই কেউ ভয়াল দর্শন বাঘে পরিণত হয় না।

দু হাত দু দিকে ছড়িয়ে দিন, তারপর নাক বরাবর একসাথে করুন। এভাবে ১০ বার করুন। 

এবার আরামে (দুই পা একটু ফাঁকা করে) দাঁড়িয়ে প্রথমে ডান হাত সোজা উপরে তুলুন। এরপর ডান হাত নামিয়ে বাম হাত তুলুন। এভাবে ১০ বার করবেন। 

এরপর দু হাত দু দিকে মেলে দিন পাখির ডানার মত। তারপর প্রথমে সামনে থেকে পেছনে ১০ বার ধীরে ধীরে ঘোরান। এরপর পেছন থেকে সামনে ধীরে ধীরে ১০ বার ঘোরান। 

এর পর কোমরে দুই হাত রেখে কোমর চারদিকে (৩৬০ ডিগ্রি) ঘোরাতে হবে। আস্তে আস্তে শুরু করে ১০ বার করুন। 

তারপর, দুই পা একসাথে করে দাঁড়ান, হাত দুটোও স্বাভাবিক অবস্থায় থাকবে। এরপর প্রথমে ডান পা ডান দিকে একফুট দুরত্ব সরাবেন এবং একই সাথে দুই হাত মাথার উপরে তুলে একসাথে করবেন। তারপর, স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরত আসবেন (দুই পা একসাথে, দু হাত শরীরের দু পাশে)। এরপর বাম পা বাম দিকে একফুট সরাবেন এবং একই সাথে দু’হাত মাথার ওপরে একসাথে করবেন। আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরত আসবেন।  এভাবে ১০ বার করুন। 

এরপর দু’হাত শরীরের পেছনে নিয়ে একসাথে করুন। ডানহাতের ওপর বাম হাত রাখুন – যেভাবে পিছমোড়া করে চোরের হাত বাঁধা হয়। এরপর আস্তে আস্তে কবজি একটু ওপর নিচ করুন। এভাবে ১০ বার করুন। 

এবার একই ভাবে হাত পেছনে রেখে দুই কাঁধ একসাথে ওপর নিচ করুন। এভাবে ১০ বার করুন। 

এর পর ছবির মত করে, ডান পা ও বাম পা ওপরে তুলুন। ডান পা ওপরে উঠবে যখন, তখন বাম হাত ওপরে উঠবে। বাম পা ওপরে উঠবে যখন, তখন ডান হাত ওপরে উঠবে। এভাবে ১০ বার করুন। 

আপনি যদি বাঙালি নারী হয়ে থাকেন, তবে প্রতিদিন সকালে একটু ওয়ার্মআপ করে নেবেন। কারন, বাড়ির সবচেয়ে বেশি কাজ আপনিই করে থাকেন। 

সুস্থ থাকুন, সুন্দর থাকুন, সুখে থাকুন!